রিউনিয়ন দ্বীপে পাওয়া বিমানের খণ্ডাংশ ফ্রান্সে



নিখোঁজ মালয়েশীয় বিমান এমএইচ৩৭০-র ধ্বংসাবশেষ হতে পারে বলে ধারণা করা বোয়িং ৭৭৭ বিমানের খণ্ডাংশটি এয়ার ফ্রান্সের একটি বিমানে করে ফ্রান্সে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

নিজস্ব প্রত্যক্ষদর্শী প্রতিবেদকের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, গ্রিনিচ মান সময় শনিবার ০৪:১৭টার সময় খণ্ডাংশটি বহনকারী বিমানটি প্যারিসের ওর্লি বিমানবন্দরে অবতরণ করেছে।

বুধবার ফ্রান্সের মালিকানাধীন ভারত মহাসাগরের রিইউনিয়ন দ্বীপের সৈকতে বোয়িং বিমানের প্রায় ছয়ফুট লম্বা ওই ধ্বংসাবশেষটি পাওয়া যায়। জোয়ারের সময় সাগর থেকে ভেসে আসা ওই অংশটি মালয়েশিয়ার রহস্যময়ভাবে নিখোঁজ হয়ে যাওয়া বিমানের একটি অংশ হতে পারে বলে জোরালোভাবে মনে করা হচ্ছে।

২০১৪ সালের মার্চে যাত্রী ও ক্রুসহ ২৩৯ জন আরোহী নিয়ে কুয়ালালামপুর থেকে বেইজিং যাওয়ার পথে পুরোপুরি উধাও হয়ে যায় মালয়েশীয় এয়ারলাইন্সের ফ্লাইট এমএইচ৩৭০।

রাডারের তথ্যে বিমানটি নির্দিষ্ট রুট ছেড়ে পুরোপুরি উল্টোদিকে ভারত মহাসাগরের দিকে চলে যায় বলে প্রমাণ পাওয়া যায়।

কিন্তু তারপর থেকে বিশ্বের অন্যতম বৃহত্তম আন্তর্জাতিক অনুসন্ধানেও বিমানটির কোনো হদিস আবিষ্কার করা যায়নি। ঘটনাটি বিশ্বের বিমান চলাচল ইতিহাসের অন্যতম বড় রহস্য হয়ে রয়েছে।

বিমানের খণ্ডাংশ পরীক্ষার সঙ্গে জড়িত এক ব্যক্তি জানিয়েছেন, ওই খণ্ডাংশটি প্রায় নিশ্চিতভাবেই একটি বোয়িং৭৭৭ বিমানের অংশ। মালয়েশিয়ার এমএইচ৩৭০ ফ্লাইটের বিমানটিও বোয়িং৭৭৭ মডেলের।

খণ্ডাংশটি ফ্রান্সের তুলজ শহরের কাছে অবস্থিত ফরাসি সামরিক বাহিনীর একটি বিশেষ ইউনিটের কাছে হস্তান্তর করা হবে। ফরাসি সামরিক বাহিনীর এই বিশেষায়িত ইউনিটটি বিমানের ধ্বংসাবশেষ বিশ্লেষণ করে থাকে।


August 1, 2015, 5:28 pm
পূর্ববর্তী সংবাদ<<    পরবর্তী সংবাদ>> Share on Facebook
  • সর্বশেষ সংবাদ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বাধিক মতামত

Name  
Email  
Country  
Comments